প্রকাশ্যে রিফাতকে কুপিয়ে খুন ! স্ত্রী মিন্নি-সহ ১০ জনের বিচার কতটুকু সম্পন্ন হয়েছিলো ?

বরগুনায় শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় ১০ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন হল। বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ মো.আছাদুজ্জামান বুধবার শুনানি শেষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন। ৮ জানুয়ারি ২০১৯ মামলার স্বাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হবে। গত ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির ২৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেন।

চার্জশিটভুক্ত অভিযুক্তরা হলেন রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯), মো. মুসা (২২), আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯) ও কামরুল হাসান সায়মুন (২১)। মামলায় অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্ত হিসেবে চার্জশিটে নাম রয়েছে রাশিদুল হাসান রিশান ওরফে রিশান ফরাজী (১৭), রাকিবুল হাসান রিফাত হাওলাদার (১৫), আবু আবদুল্লাহ ওরফে রায়হান (১৬), ওলিউল্লাহ ওরফে অলি (১৬), জয় চন্দ্র সরকার ওরফে চন্দন (১৭), মো. নাইম (১৭), তানভীর হোসেন (১৭), নাজমুল হাসান (১৪), রাকিবুল হাসান নিয়ামত (১৫), সাইয়েদ মারুফ বিল্লাহ ওরফে মহিবুল্লাহ (১৭), মারুফ মল্লিক (১৭), প্রিন্স মোল্লা (১৫), রাতুল শিকদার জয় (১৬) ও আরিয়ান হোসেন শ্রাবন (১৬)।

মামলার আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম জানিয়েছেন, এই মামলার প্রাপ্তবয়স্ক আসামী মুছা বন্ড এখনও গ্রেফতার হয়নি। কিশোর আসামি প্রিন্স মোল্লা ও নিহত রিফাতের স্ত্রী ও আসামি আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিও হাইকোর্টের নির্দেশে জামিনে রয়েছেন। গত বছরের ২৬ জুন ২০১৯ বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। ওই দিনই রিফাত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

দেখতে দেখতে পেরিয়ে গেছে প্রায় এক বছর কিন্ত ধরা ছোঁয়ার বাহিরে রয়ে গেছে অনেকেই । প্রশ্ন রয়েই গেলো , এই কেসটাও কি অমীমাংসিত রয়ে যাবে ?