সাতক্ষীরায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ী বহরে হামলার আসামীদের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

ফিরোজ জোয়ার্দ্দার÷

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ী বহরে হামলা মামলার আসামীদের দ্রুত বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (৩১ই আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে নিউ মার্কেট চত্বরে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ্ব নজরুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবু, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আলী, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন, সাবেক পিপি এড. ওসমান গণি, সাবেক দপ্তর সম্পাদক হারুন অর রশিদসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সকালে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মুক্তিযোদ্ধার ধর্ষিতা স্ত্রীকে দেখতে সাতক্ষীরায় আসেন তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাকে দেখে সড়ক পথে ঢাকায় ফেরার সময় বেলা ১১ টার দিকে কলারোয়া বিএনপি অফিসের সামনের শেখ হাসিনার গাড়ী বহরে হামলা চালায় তৎকালীন ক্ষমতাসীন বিএনপি’র এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিবের নেতৃত্বে যুবদল ও ছাত্রদলের ক্যাডাররা।
হামলাকারীরা শেখ হাসিনাকে লক্ষ্য করে গুলি ও বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়।
এ সময় ১৫-২০ টি গাড়ী ভাংচুর করে।
আহত হয় শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতাসহ স্থানীয় অর্ধশত নেতাকর্মী।

বক্তারা আরও বলেন, এ ঘটনায় তৎকালীন সময়ে মামলা নেয়নি পুলিশ। পরবর্তীতে ১২ বছর পর ২০১৪ সালে ১৫ অক্টোবর সাতক্ষীরা আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন কলারোয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোসলেম উদ্দীন। আদালত মামলাটি কলারোয়া থানা পুলিশকে নথিভুক্ত করতে নির্দেশনা প্রদান করেন। তদন্ত শেষে ২০১৫ সালের ১৭ই মে বিএনপি তৎকালীন এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ ২৭ জনের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে বিষ্ফোরক দ্রব্য ও অস্ত্র আইনে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন পুলিশ। বর্তমানে উচ্চ আদালতে আসামী পক্ষের করা স্থগীতাদেশ থাকায় আদালতে মামলাটি চাঁপা পড়ে যায়। এর ফলে পুনারায় আদালত মামলাটি সচল করে দিয়ে বিচারকাজ শুরু করে দিয়েচেন। তাই অতিদ্রুত সকল আসামীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।